নেত্রকোণা “শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়” ও জামালপুর “বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় “পাচ্ছে

এ আইনের আলোকে প্রধানমন্ত্রীর নামে নেত্রকোণায় হবে শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়। আর জামালপুরে প্রধানমন্ত্রীর মায়ের নামে হবে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

বাংলাদেশে বর্তমানে ৩৮টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। নতুন দুটি বিশ্ববিদ্যালয় হলে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা হবে ৪০টি।

সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ‘বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা আইন মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১৭’ এবং ‘শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১৭’ এর খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়। ভেটিং শেষে আইনগুলো চূড়ান্ত হবে।

সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় বেসরকারি শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ফিশারিজ কলেজকে পূর্ণাঙ্গ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর করা হবে।

শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ফিশারিজ কলেজের ক্যাম্পাসে নয় একর জমি রয়েছে বলে জানান তিনি।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, নেত্রকোণাবাসীর দীর্ঘ দিনের দাবির প্রেক্ষিতে সেখানে শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে। প্রথমে সেখানে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় করার কথা ভাবা হলেও পরে ‘জেনারেল’ বিশ্ববিদ্যালয় করার সিদ্ধান্ত হয়।

এ আইনের আলোকে প্রধানমন্ত্রীর নামে নেত্রকোণায় হবে শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়। আর জামালপুরে প্রধানমন্ত্রীর মায়ের নামে হবে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

বাংলাদেশে বর্তমানে ৩৮টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। নতুন দুটি বিশ্ববিদ্যালয় হলে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা হবে ৪০টি।

সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ‘বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা আইন মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১৭’ এবং ‘শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১৭’ এর খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়। ভেটিং শেষে আইনগুলো চূড়ান্ত হবে।

সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় বেসরকারি শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ফিশারিজ কলেজকে পূর্ণাঙ্গ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর করা হবে।

শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ফিশারিজ কলেজের ক্যাম্পাসে নয় একর জমি রয়েছে বলে জানান তিনি।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, নেত্রকোণাবাসীর দীর্ঘ দিনের দাবির প্রেক্ষিতে সেখানে শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে। প্রথমে সেখানে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় করার কথা ভাবা হলেও পরে ‘জেনারেল’ বিশ্ববিদ্যালয় করার সিদ্ধান্ত হয়।