আগামী নির্বাচনের জন্য সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিতে দলীয় এমপিদের নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

Hasina

আগামী নির্বাচনের জন্য এখন থেকেই সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিতে দলীয় এমপিদের নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতীয় সংসদ ভবনের সরকারি দলের সংসদীয় দলের সভাকক্ষে বৈঠকে তিনি দলীয় সংসদ সদস্যদের উদ্দেশ করে বলেন, আগামী নির্বাচন খুব সহজ হবে না। কারণ, নির্বাচনে বিএনপি অংশ গ্রহণ করবে। নির্বাচনে একটি শক্ত প্রতিদ্ব›িদ্বতা মোকাবেলা করতে হতে পারে, সেজন্য সবাইকে প্রস্তুতি রাখতে হবে। শক্ত প্রতিদ্ব›িদ্বতা অতিক্রম করার জন্য দলকেও সেভাবেই প্রস্তুত করতে হবে। এলাকায় গিয়ে ভালো কাজের মাধ্যমে জনগণের মন জয় করতে হবে। জনসম্পৃক্ততা বাড়াতে হবে। সরকারের উন্নয়ন ও সফলতার কথা আরও বেশি করে মানুষের মধ্যে প্রচার করতে হবে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদের নবমতলায় সরকারি দলের সভাকক্ষে সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় বৈঠকটি শুরু হয়ে রাত পৌনে ৯টা পর্যন্ত চলে। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, মন্ত্রী শাজাহান খান, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন, ড. হাছান মাহমুদ, মুন্নুজান সুফিয়ান, মনিরুল ইসলাম, এ কে এম শামীম ওসমান, শামসুল হক চৌধুরী প্রমুখ। বৈঠকের শুরুতেই সর্বসম্মতিক্রমে আওয়ামী লীগ সংসদীয় দলের সম্পাদক নির্বাচিত করা হয় অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটনকে। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে বলেন, আগে দলের সাধারণ সম্পাদকই সংসদীয় দলের সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করতেন। কিন্তু আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক একজন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী। তার একার পক্ষে এত দায়িত্ব পালন করা কঠিন হবে। এ কারণেই নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটনকে এবার সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এ সময় দলীয় এমপিরা লিটনকে অভিনন্দনও জানান।

তার কাছে থাকা তথ্যের ভিত্তিতেই আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া হবে বলেও সতর্ক করেছেন শেখ হাসিনা। তিনি এমপিদের উদ্দেশে বলেন, শুধু উন্নয়ন দিয়ে হবে না। ক্ষমতায় যেতে হলে জনগণের কাছে যেতে হবে। অতীতে জনগণের কাছ থেকে অনেক কিছু নিয়েছেন, এখন জনগণকে দিন।
বৈঠক সূত্র আরও জানায়, কানাডার আদালতের রায়ে বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে ঘোষণা প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, বিএনপি যে একটি সন্ত্রাসী দল, তা শেষ পর্যন্ত কানাডার আদালতেই প্রমাণ হয়েছে। তারা অতীতে যে সন্ত্রাসী তৎপরতা চালিয়েছে, সেটিও প্রমাণ হয়েছে। এরা মানুষ মারে, পুলিশ মারে, নাশকতা করে। বিএনপি-জামায়াত জোটের সেই আগুনসন্ত্রাস, পুড়িয়ে মানুষ হত্যা ও ধ্বংসযজ্ঞসহ সব অপকর্মের বিষয়ও জনগণের সামনে বেশি করে তুলে ধরতে হবে। এদের সম্পর্কে দেশবাসীকে সজাগ ও সতর্ক করতে হবে।

দলীয় এমপিদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, সবাইকে নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকায় গিয়ে জনগণের সঙ্গে সমন্বয় করে জনগণের জন্য কাজ করতে হবে। নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপি আসবে। কাজেই নির্বাচনে একটি শক্ত প্রতিদ্ব›িদ্বতা মোকাবেলা করতে হতে পারে। এ কারণে সবার মধ্যে সে ধরনের প্রস্তুতি রাখতে হবে। শক্ত প্রতিদ্ব›িদ্বতা অতিক্রম করার জন্য দলকেও সেভাবেই প্রস্তুত করতে হবে। সরকারের উন্নয়ন-সফলতাগুলো জনগণের সামনে ভালভাবে তুলে ধরতে হবে।