খালেদা জিয়া কারাগারে। নেপথ্যে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন এবং বিএনপি ?

রাজনীতিতে শেষ বলে যেমন কিছু নাই, তেমন ষড়যন্ত্রেরও শেষ নাই। গত ০১ সেপ্টেম্বরে জনসমাবেশে বিএনপির যেসব নেতারা জিরাফের মত গলা বড় করে বলেছিলেন খালেদা জিয়া ছাড়া তারা কেউ নির্বাচনে যাবেন না, তারাই আজ খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তারা তাদের প্রতিজ্ঞা রাখেন নাই।

সেই সমাবেশে রুহুল কবির রিজভী বলেছিলেন,কিসের নির্বাচন? দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী খালেদা ছাড়া নির্বাচন হবে না। আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছিলেন, খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে কোনও নির্বাচন হবে না। ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার বলেছিলেন, খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে দেশে কোনও নির্বাচন হবে না।  ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছিলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে,না হলে দেশে কোনো নির্বাচন হবে না।

ম্যাও ম্যাও অনেক দিন থেকেই শোনা যাচ্ছিলো। এখন থলের থেকে বেড়াল বের হতে শুরু করেছে। বিএনপির এইসব শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা সরকারের সাথে যোগাযোগ করে নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। নিজেদের এলাকায় জনসংযোগ চালাচ্ছেন। ড.কামালের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দীতা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এসবের ভেতরই বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত বার্নিকেটের সাথে বিএনপি শীর্ষ নেতৃত্বের গোপন সভার কথা ফাঁস হয়ে গেছে। সেখানে তারা খালেদা জিয়া এবং তারেক জিয়াকে বাদ দিয়ে বিএনপি চালাতে চেয়ে নিজেদের ইচ্ছা উন্মুক্ত করেছেন। দলের নেতৃত্বে মির্জা ফখরুলের পরিবর্তে ড.খন্দকার মোশারফের কথা বিবেচনা করেছেন। রাজনীতি বড়ই অদ্ভুত। আরো অদ্ভুত বিএনপির রাজনীতি।

 

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন । তিনি বিএনপি জামায়াত সমর্থিত আইনজীবীদের প্যানেলের প্রতিনিধি। সম্প্রতি খালেদা জিয়ার কারাবরণ নিয়ে তিনি সত্য প্রকাশের বোমা ফাঁটিয়েছেন। তিনি বলেছেন খালেদা জিয়াকে কারাবরণ এবং বিএনপি থেকে চির বিদায়ের নীল নকশার অন্যতম চিত্রকররা দলের বাইরের কেউ নয়। এর পেছনে দলের হাই কমান্ডই জড়িত। আর কারাবরণের নকশা খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকনের নোংরা হাতেই আঁকা হয়েছে।

 

০১ সেপ্টেম্বরের বিএনপির সমাবেশে ব্যারিস্টার মওদুদ বলেছিলেন খালেদা জিয়া ছাড়া তিনি নির্বাচনে দাড়াবেন না; সেই মওদুদ ই  ২২ অক্টোবর গনমাধ্যমে জানান যে খালেদা জিয়াকে ছাড়াই ড.কামালের নেতৃত্বে তিনি এবং বিএনপি নির্বাচনে যাবে। কারন এখানে ‘বেনিফিট’ আছে। সত্যিই রাজনীতি বড়ই অদ্ভুত। আরো অদ্ভুত বিএনপির রাজনীতি।