জোটে থাকার কাকুতি মান্না-রবদের

 

আ.স.ম আব্দুর রব বাংলাদশের জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) এর নেতা এবং মাহমুদুর রহমান মান্না বাংলাদেশ নাগরিক ঐক্য এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং আহ্বায়ক। এরা দুজনেই সাবেক আওয়ামীলীগার। আ স ম আব্দুর রব ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে লক্ষ্মীপুর জেলা থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং আওয়ামী লীগ সরকারের নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ছিলেন। মাহমুদুর রহমান মান্না ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।

এদের দুজনের কেউই এখন আওয়ামীলীগে নেই। আওয়ামীলীগ ছেড়ে পস্তাচ্ছেন দুজনই। মিডিয়ার কল্যাণে পরিচিত হওয়া, জাতীয় নেতার তকমা পাওয়া এই নেতাদের জনপ্রিয়তা এখন তলানিতে। নেই ভোটব্যাংকও। আওয়ামীলীগ ছেড়ে দুজনেই গঠন করেছিলেন আলাদা রাজনৈতিক দল কিন্তু সুবিধা করতে পারেন নি। ফিরে যেতে চেয়েছিলেন আওয়ামীলীগে, কিন্তু ঠাঁই পান নি আওয়ামীলীগে। শেখ হাসিনা তাদের দলে ফিরিয়ে নেন নি। এখন জোট করেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে। সেখানে ও তেমন একটা সুবিধা করতে পারছেন না। তাদেরকে জোটে রাখতে চাচ্ছে না বিএনপি।
নামস্বর্বস্ব দল আর এক দলের এক নেতা। অঙ্গ-সংগঠন তো দূরের কথা, নেই পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রীয় কমিটি। এরকম দল জোটে থাকা আর না থাকা সমান কথা। তারা এককভাবে নির্বাচন করলে জিততে তো পারবেনই না উল্টো জামানত হারাতেও পারেন। এরকম নেতাদের কেই-বা জোটে রাখতে চায়?

তাই কোথাও ঠাঁই না পেয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে থাকার জন্য বিএনপির কাছে কাকুতি মিনতি করছেন মান্না ও রব। আর বারবার দল পরিবর্তন করা এই মান্না ও রব কে বিশ্বাস করতে পারছেন না জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এর জোটের বাকি নেতারা।