কাদেরের ধানের শীষ তত্ত্বে, ক্ষোভ বিএনপিতে

 

কথায় আছে, ঢেঁকি স্বর্গে গেলেও ধান ভানে। আলোচনায় আসা যার স্বভাব, তার কী আর বিষয়বস্তুর অভাব! তাই আবারও বিতর্কিত মন্তব্য করে আলোচনায় এসেছেন বহুল আলোচিত-সমালোচিত কাদের সিদ্দিকী।

সম্প্রতি তিনি এক নির্বাচনী সমাবেশে বলেন, ‘ধানের শীষ বিএনপির মার্কা নয়। এটি ভাসানীর মার্কা। এই মার্কা ভাসানী জিয়াউর রহমানকে দিয়ে গিয়েছেন’।

এছাড়াও তিনি মন্তব্য করে বলেন, মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে খালেদা জিয়া আমার অটোগ্রাফ নিয়েছেন। আমার ভাবতে ভালো লাগে।

তার এমন বক্তব্যে ক্ষেপেছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। তারা বলছেন, মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ১৯৪৯ সালে পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। অপরদিকে বিএনপি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর। যার প্রতীক নির্ধারিত হয় ধানের শীষ। এই প্রতীকের সাথে ভাসানীর কোনো সম্পর্ক নেই। তবুও তিনি কোন যুক্তিতে এই মন্তব্য করলেন, তা বোধগম্য নয়।

এছাড়াও কাদের সিদ্দিকী খালেদা জিয়াকেও নিয়েও আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন বলে মনে করেন ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। ‘খালেদা জিয়া কাদের সিদ্দিকীর অটোগ্রাফ নিয়েছেন’ এমন বক্তব্যে বিএনপি নেত্রীর মানহানি হয়েছে বলে মনে করেন দলটির কর্মী-সমর্থকেরা। তারা মনে করছেন, কাদের সিদ্দিকী বিএনপির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তিনি বেফাঁস মন্তব্যের মাধ্যমে বিএনপির ক্ষতি করছেন।

নেতাকর্মীরা অবিলম্বে কাদের সিদ্দিকীকে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করার আহ্বান জানান। অন্যথায় তার দলকে দেয়া ৩টি আসনে প্রদানকৃত মনোনয়ন প্রত্যাহারেরও দাবি জানান দলের হাইকমাণ্ডের কাছে।

প্রসঙ্গত, দুর্নীতি-অনিয়ম ও বেফাঁস মন্তব্যের কারণে কাদের সিদ্দিকী বরাবরই আলোচিত-সমালোচিত। তার অসংখ্য দুর্নীতির প্রমাণসমৃদ্ধ রিপোর্ট ফলাও করে প্রচার হয়েছে গণমাধ্যমে। ঋণখেলাপীর হবার কারণে নিজে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে না পারলেও একটি আসনে তার মেয়ে ধানের শীষ প্রতীকে লড়বেন।