যাদের কারণে প্রকল্প ব্যয় ও মেয়াদ বাড়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

 

যাদের কারণে প্রকল্প ব্যয় ও মেয়াদ বাড়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা এই নির্দেশ দেন।

বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান জানান, প্রকল্প তৈরিতে যাদের কারণে পরবর্তীতে নতুন আইটেম যোগ করতে হয় এবং এর ফলে প্রকল্প ব্যয় ও মেয়াদ বাড়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

‘তিনি বলেছেন- প্রকল্প তৈরিতে যাদের কারণে ভুল হয়, তাদের খুঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনতে হবে’ যোগ করেন মন্ত্রী।

পল্লী সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণ প্রকল্পের সংশোধনী প্রস্তাব অনুমোদন দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, খুঁজে বের করুন, কারা জড়িত ছিলেন। সেই সঙ্গে জানাতে হবে এদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, প্রকল্প পরিচালকদের প্রকল্প এলাকায় থাকতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেছেন, প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ দেওয়ার ক্ষেত্রেই বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বড় বড় সেতু নির্মাণে একটি মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করতে হবে। জনগণের প্রয়োজনে তৈরি করতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন সেতু নির্মাণের কারণে পানি প্রবাহ বাধাগ্রস্ত না হয়। সেতুগুলো এমনভাবে তৈরি করতে হবে যাতে নৌ-চলাচল বাধাগ্রস্ত না হয়।

তিনি আরও বলেন, শুধু বড় ঠিকাদাররাই নয়, ছোট ঠিকাদাররাও যাতে কাজ পান সে বিষয়ে নজর রাখতে হবে।

একনেকে আজ ৪ হাজার ৩৪৭ দশমিক ২১ কোটি টাকা ব্যয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে। এছাড়াও একনেকের বৈঠকে আরও সাতটি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। আটটি প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১১ হাজার ৩২৪ কোটি ৩৩ লাখ টাকা।