মাত্র ৫ সেকেন্ডে প্রবাসীদের অর্থ পৌঁছাবে স্বজনদের কাছে

প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, আমাদের দেশে ৫ কোটি মানুষের কোনো ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নেই। তারা নগদ টাকার বিনিময়ে লেনদেন করছে। আর এই নগদ টাকার কারণে দেশে দুর্নীতি বাড়ছে, লুটপাট বাড়ছে। কিন্তু আমরা যখন নগদ বিহীন লেনদেনে চলে যাব তখন দুর্নীতি বন্ধ হয়ে যাবে।

আজ মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে ‘ব্লেজ’ নামে একটি রেমিট্যান্স সেবা উদ্বোধনকালে তিনি একথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংক, ডিজিটাল পেমেন্ট নেটওয়ার্ক ‘হোম পে’এবং প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ইনফরমেশন টেকনোলজি কনসালটেন্ট মিলে ‘ব্লেজ’ নামের এই সেবা চালু করল। এর মাধ্যমে প্রবাসীদের অর্থ বিশ্বের যে কোনো প্রান্ত থেকে মাত্র ৫ সেকেন্ডে দেশে তার স্বজনদের কাছে পৌঁছাবে সোনালী ব্যাংক। সপ্তাহে ৭ দিন ২৪ ঘণ্টা এই সেবা পাওয়া যাবে।

অনুষ্ঠানে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, আমাদের দেশের সবচেয়ে বড় আয় প্রবাসীদের রেমিট্যান্স। কিন্তু প্রবাসীরা দেশে টাকা পাঠাতে গিয়ে অনেক সমস্যায় পড়েন। আবার টাকা পাঠালেও তাদের স্বজনদের টাকা হাতে পেতে দুই-তিন দিন সময় লাগে। ডিজিটালের এ যুগে এমন সমস্যা আর থাকা উচিত নয়। সেজন্য এই ব্লেজ সার্ভিসের উদ্বোধন করা হলো।

তিনি বলেন, সরকারি সকল ভাতা এখন আর নগদ টাকায় দেওয়া হচ্ছে না। ডিজিটাল পদ্ধতিতে দেওয়া হয়। এর ফলে যারা আগে গ্রামে টাকা বিতরণ করত তাদের টাকা চুরি করার একটা সুযোগ থাকত। কিন্তু আমরা সেই সুযোগ বন্ধ করে দিয়েছি।

সজীব ওয়াজেদ আরো বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন হচ্ছে বাংলাদেশকে উন্নত করা, বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং বাংলাদেশের মানুষের জীবনকে আরও সহজ করা। গত ১৭ মাসে করোনা মহামারির মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল আমরা সবচেয়ে বেশি পেয়েছি। বিশ্বের ধনী দেশগুলো করোনার মধ্যে দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হয়েছে। তাদের স্কুল-কলেজগুলো বন্ধ হয়ে গেছে। কারণ তাদের ডিজিটাল সুবিধা ছিল না।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বাংলাদেশ ব্যাংকের সহযোগিতায় ৩৫টি ব্যাংক এই ব্লেজ সুবিধা চালু করবে।