জাতিসংঘের ৭৬তম সাধারণ পরিষদের সহসভাপতি বাংলাদেশ

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনের সহসভাপতি নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ। জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের ফেসবুক পেজে দেওয়া বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

স্থানীয় সময় ৭ জুন নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দপ্তরে সাধারণ পরিষদ হলে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বাংলাদেশ সর্বসম্মতিক্রমে এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে সহসভাপতি নির্বাচিত হয়।

বাংলাদেশ ছাড়াও এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে নির্বাচিত অন্যান্য সহসভাপতি হলো কুয়েত, লাওস ও ফিলিপাইন। মালদ্বীপের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল্লাহ শহীদ ৭৬তম সাধারণ পরিষদের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। এক বছর মেয়াদের এ দায়িত্ব চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাস থেকে শুরু হবে।

নির্বাচনে জয়লাভের পর এক প্রতিক্রিয়ায় জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা বলেন, বাংলাদেশ বহুপাক্ষিকতার ধারক ও বাহক। বর্তমান বিশ্বের জটিল চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলার ক্ষেত্রে জাতিসংঘের নেতৃত্বের প্রতি বাংলাদেশ বিশ্বাসী। উন্নয়ন, শান্তি, নিরাপত্তা, মানবাধিকারের বিভিন্ন বৈশ্বিক ইস্যুতে বাংলাদেশ তার নীতিগত ও গঠনমূলক অবস্থান বজায় রেখেছে। বহুপক্ষীয় ফোরামে নেতৃত্বদানের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বাংলাদেশের ওপর যে আস্থা রাখে, এ নির্বাচন তারই বহিঃপ্রকাশ।

বিবৃতিতে বলা হয়, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশন বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ, বিশ্ব এখন কোভিড-১৯ অতিমারি ও তার বহুমাত্রিক প্রভাব থেকে পুনরুদ্ধারের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছে।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ ১৯৩টি সদস্যরাষ্ট্র নিয়ে গঠিত। জাতিসংঘ সনদ অনুযায়ী আন্তর্জাতিক বিষয়াবলিতে পূর্ণাঙ্গ বহুপক্ষীয় আলোচনার মাধ্যমে সুচিন্তিত মতামত প্রদান ও নীতিনির্ধারণের ক্ষেত্রে বিশ্ব সংস্থাটির প্রতিনিধিত্বশীল অঙ্গ হিসেবে সাধারণ পরিষদ কাজ করে থাকে। সাধারণ পরিষদের প্রেসিডেন্টের সভাপতিত্বে নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে প্রতিবছর সেপ্টেম্বর মাসে সাধারণ পরিষদের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে ২০১৬-১৭ মেয়াদে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনে বাংলাদেশ সহসভাপতির দায়িত্ব পালন করে। তবে সাধারণ পরিষদের এবারের অধিবেশনে সদস্যরাষ্ট্রের প্রতিনিধিরা ভার্চ্যুয়ালি, নাকি সশরীরে অংশগ্রহণ করবেন, তা এখনো নির্ধারিত হয়নি।