বাজার মনিটরিং জোরদার করবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়

নিত্যপণ্যের মজুত, সরবরাহ ও দাম স্থিতিশীল রাখতে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করা হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য সচিব।

বুধবার সচিবালয়ে নিত্যপণ্যের মজুত ও সরবরাহ পরিস্থিতি নিয়ে জরুরি বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান সচিব তপন কান্তি ঘোষ। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বিভিন্ন পণ্যের বড় বড় সরবরাহকারী, পণ্যভিত্তিক ব্যবসায়ী সমিতি ও নীতিনির্ধারকদের নিয়ে এ বৈঠক হয়।

দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে টিসিবির তৎপরতা ‘আরও জোরদার’ করা হবে জানিয়ে সচিব বলেন, ‘প্রান্তিক জনগোষ্ঠী বা স্বল্প আয়ের মানুষের কষ্ট লাঘবে আমরা টিসিবির অপারেশন গত বছরের তুলনায় আড়াই গুণ বৃদ্ধি করেছি। টিসিবি আরও কয়েকটি পণ্য বিক্রি করছে এবং আগামী মাস থেকে পেঁয়াজসহ আরও পণ্য বিক্রি শুরু করবে।’

সচিব বলেন, বর্তমানে সব ধরনের নিত্যপণ্যের মজুত পর্যাপ্ত, কোনো ঘাটতি নেই। তাছাড়া কিছু পণ্য আমাদের আমদানি করতে হয়। আন্তর্জাতিক বাজারের সাথে সমন্বয় করে সেসব পণ্যের করে দাম নির্ধারণ করা হবে, এ বিষয়ে ব্যবসায়ীরা সরকারকে প্রতিশ্রম্নতি দিয়েছে। চালের মূল্যের বিষয়টি খাদ্য মন্ত্রণালয় দেখছে। সাত লাখ টন চাল আমদানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। আমদানি উৎসাহিত করতে চালের ওপর শুল্ক কমানো হয়েছে।

এ সময় তিনি বলেন, চিনি ও তেলের দাম আন্তর্জাতিক বাজারের সাথে সমন্বয় করা হবে। তবে আন্তর্জাতিক বাজারের দোহাই দিয়ে কেউ যেন দাম বাড়াতে না পারে সেজন্য ব্যবস্থা নেবে মন্ত্রণালয়। প্রয়োজন হলে ভোজ্যতেল ও চিনির দাম স্থিতিশীল রাখতে এনবিআরকে শুল্ক কমাতে চিঠি দিবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের আমদানি ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য (আইআইটি) অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব এএইচএম সফিকুজ্জামান বলেন, ভোজ্যতেলের দাম আগে যা নির্ধারণ করা হয়েছিল সেটাই থাকবে। আগস্ট মাস শোকের মাস বিবেচনায় এই মাসে নতুন করে দাম বাড়ানোর কোনো সুযোগ নেই। আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়ালেও সেটা পরে বিবেচনা করা হবে।

আন্তর্জাতিক বাজারে কাঁচামালের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণ দেখিয়ে দেশের চিনির দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। গত এক মাসে চিনির দাম অন্তত ১২ শতাংশ বেড়ে ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ বিষয়ে সফিকুজ্জামান বলেন, চিনির খুচরা মূল্য আপাতত ৭৫ টাকা থেকে ৮০ টাকার মধ্যেই থাকবে বলে আলোচনা হয়েছে।

টিসিবির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আরিফুল হাসান, সিটি গ্রম্নপ, টিকে গ্রম্নপ, এস আলম গ্রম্নপ, মেঘনা গ্রম্নপের প্রতিনিধি, বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন, ভোজ্যতেল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি গোলাম মাওলাসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন সভায়।